আমাদের কথা

আমাদের কথা

আমাদের কথা

আমাদের কথা
সমস্ত প্রশংসা আল্লাহ্ তায়ালারই জন্য আমরা তাঁরই এবাদত করি এবং তাঁরই সাহায্য প্রার্থনা করি। তাঁরই কাছে ক্ষমা চাই আমাদের ভুল ভ্রাšিত ও বিচ্যুতির জন্য। তিনি যাকে পথ প্রদর্শন করেন সেই সুপথ প্রাপ্ত হয় কেউই তাকে বিপথে নিতে পারে না, আর তিনি যাকে সুপথ প্রদর্শন করেন না কেউ তাকে সুপথে আনতে পারে না। আমরা স্বাক্ষ্য দেই যে, আল্লাহ তায়ালা ছাড়া আর কোন ইবাদতের যোগ্য কেহ নাই তিনি এক এবং অদ্বিতীয় তাঁর কোন অংশীদার নাই এবং মানব শ্রেষ্ট মুহাম্মদ সাল্লাহু ওয়া আলাইহে ওয়া সাল্লাম তাঁর দাস ও প্রেরিত রাসুল। শ্রেষ্ট পথ প্রদর্শন আল্লাহ তায়ালাই এবং শ্রেষ্ট পথ প্রদর্শক মুহাম্মদ সাল্লাহু ওয়া আলাইহে ওয়া সাল্লাম। 
আল্লাহ তায়ালা কোরআনুল কারিমে এরশাদ করেছেন “তোমাদের মধ্যে এমন একটি দল থাকা আবশ্যক যারা মানুষকে কল্যাণের দিকে আহবান করবে এবং আদেশ করবে ভাল কাজের আর নিষেধ করবে মন্দ কাজের। এরাই হল সফল কাম।” (৩: ১০৪)
বর্তমানে ইসলাম হল সারা বিশ্বে নানা প্রকার অপব্যাখ্যার রংএ রঞ্জিত সর্বাধিক ভ্রাšত ভাবে উপস্থাপিত ধর্ম। এর জন্য অপর কাউকে দোষ দিয়ে লাভ নেই বরং স্বীকার করতেই হবে এ দোষ আমাদেরই অর্থাৎ আমরা যারা নিজেদের মুসলিম বলে দাবী করি তাদেরই। কারণ ইসলামকে এর সঠিক আংগিকে সারা বিশ্বের সামনে উপস্থাপন করার দায়ীত্ব  ছিল আমাদেরই, অথচ যে কারনেই হোক আমরা তা করে উঠতে পারিনি। যার কারনে অন্যান্য ধর্মের লোকেরা বিশেষ ভাবে পাশ্চাত্য এবং প্রাচ্যের বহুমানুষের কাছে আজও ইসলামের মর্মবাণী সঠিক ভাবে পৌছানো সম্ভব হয় নি। অথচ শেষ নবীর উম্মত হিসেবে এর সম্পূর্ণ দায়িত্ব ছিল আমাদেরই। কাল কেয়ামতের দিনে বিভিন্ন ধর্মের মানুষ আল্লাহ তায়ালার দরবারে এর জন্য আমাদের অবশ্যই অভিযুক্ত করবে এবং এর জবাব আমরা আল্লাহ’র দরবারে দিতে পারব কি?  আধুনিক মানুষ নানা সমস্যায় জর্জরিত এবং তার চরম ব্য¯ততার মধ্যে বিভিন্ন বই পুস্তক পাঠ করে ইসলাম সম্বন্ধে জেনে নেবে, এই চিšতা করে যদি আমরা বসে থাকি তবে নিতাšতই ভুল করব। বর্তমান  কাল হল ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার যুগ তাই এই অপূর্ব প্রচারের হাতিয়ারটির সুযোগ আমাদের অবশ্যই গ্রহণ করা উচিত এবং এর মাধ্যমে ইসলামের সুন্দর আদর্শিক রূপটি যদি আমরা বিশ্বের সামনে তুলে ধরতে পারি তাহলে অনেকেই হয়ত তাঁদের সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যেও এথেকে কিছু শিক্ষা গ্রহণ করতে পারবেন এবং এতে সম্ভবত আল্লাহ তায়ালা আমাদের উপরে রাজি-খুশি হয়ে আমাদের নাজাতের পথ খুলে দিতে পারেন। সেই আশা নিয়েই আমাদের সংস্থা “লাইট অফ ইসলাম ফাউন্ডেসন” এর অগ্রযাত্রা। আমাদের উদ্দেশ্য গুলি সংক্ষেপে নিম্ন রূপ। 
১। মানুষকে তার সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ’তায়ালার একত্বের দিকে এবং আমাদের প্রিয় শেষ ও শ্রেষ্ঠ নবী রাসুলে কারিম (সাঃ) প্রদর্শিত মানবতার পথে আহ্বান। 
২। মুসলিম ও অমুসলিম প্রতিটি মানুষের কাছে ইসলামের শিক্ষা, সংস্কৃতি, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক ইতিহাস, ইত্যাদির পরিচয় তুলে ধ’রে অন্যান্য ধর্মীয়দের সঙ্গে সম¯ত ভুল বোঝা বুঝি ও সংঘর্ষের সমাপ্তির প্রচেষ্টা করা। 
৩। মানবতার সেবায় মানবিক, মানষিক ও আধ্যাত্মিক সকল প্রকার বদান্যতার দ্বারা বিশেষ ভাবে অবহেলিত ও উপেক্ষিত মানবগোষ্ঠির- যাদের কাছে এখনও ইসলামের সুমহান বাণী পৌঁছেনি তাদের-সর্বাঙ্গিন উন্নতি সাধণের প্রচেষ্টা করা।
৪। আমরা সম্পূর্ণ ভাবে সন্ত্রাস মুক্ত, বিশেষ কোন দলীয় রাজনৈতিক উদ্দেশ্যবর্জিত, সম্পূর্ণ ধর্মীয় উদ্দেশ্যে নিবেদিত, অলাভজনক সংস্থা, যার উদ্দেশ্য শাšিতপূর্ণ উপায়ে ইসলামের খিদমত ও এর সুমহান বাণীর প্রচার। 
৫।  উপরোক্ত উদ্দেশ্যে লাইব্রেরী, পড়াশোনার বিভিন্ন অনুষ্ঠান পরিচালনা, মক্তব, মাদ্রাসা, এতিমখানা, স্কুল কলেজ, কারিগরি বিদ্যালয়/মহা-বিদ্যালয় স্থাপন ও পরিচালনা।
৬। দুঃস্থ ও সহায় সম্বলহীন নও- মুসলিমদের আর্থিক ও আইনগত সহায়তা, বিশেষ ভাবে অবহেলিত দুঃস্থ নারীও এসিড ভিকটিমদের জন্য বিশেষ সহায়তা প্রদান।  
৭। আমাদের সম¯ত ক্রিয়াকলাপের মূল উদ্দেশ্য  একমাত্র আল্লাহ তায়ালাকে রাজি খুশি করা।
৮। বিভিন্ন ওয়েব পেজ তৈরী, জার্নাল, ম্যাগাজিন, বই পত্র প্রকাশনা, ভ্রাম্যমান লাইব্রেরী পরিচালনা, চলমান ইসলামিক ইস্যুগুলির পর্যালোচনা, ধর্মীয় জিজ্ঞাসার চিঠি পত্রের জবাব বিভিন্ন ব্যাক্তি বর্গের মতামত, বর্তমান বিশ্বে বিভিন্ন ইসলামিক ইস্যু ও সমস্যগুলির পর্যালোচনা ও সাম্ভ্যব্য ব্যাখ্যা প্রদান।
৯। এই উদ্দেশ্যে বিভিন্ন সংগঠন, সরকারী ও বেসরকারী সংস্থাগুলির মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করে শাšিতপূর্ণ ও সন্ত্রাস বিহীণ উন্নত নৈতিকতাপূর্ণ সমাজ গড়ে তোলার লক্ষ্যে নিরলস কার্যক্রম চালানোর জন্য আমরা অঙ্গিকার বদ্ধ।  
১০। যারা এই ওয়েব সাইটটি পর্যবেক্ষন করবেন, আশাকরি তাঁরা তাঁদের জ্ঞানগর্ভ উপদেশ, সহানভূতি, সমবেদনা ও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে আমাদের অগ্রযাত্রায় সর্বোত ভাবে সাহায্য করবেন।
এই ওয়েব সাইটটির ইংরাজী সংস্করণ ২০০৯ সাল থেকে বাধাহীণ ভাবে চলে আসছে এবং বিশেষ ভাবে বিদেশীদের অনেকেরই দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে, কিন্তু দেশীয় অনেক ভাই বোনেরা এটি বাংলায় চালু করার জন্য বহুদিন থেকে অনুযোগ করে আসছেন। বিশেষ ভাবে তাঁদের অনুরোধেই এটির বাংলা সংস্করণ ও প্রচলন করা গেল। “লাইট অফ ইসলাম” বাংলা ওয়েব পেইজ-এ স্বাগতম। 


তারিখ: বুধবার, ৪ মার্চ, ২০১৫ ।